Home » পড়াশোনা » টিপস » ইংরেজি বলা এত সোজা!

ইংরেজি বলা এত সোজা!

ফারাব্বী
আপনার মূল্যবান সময়ের ২০ মিনিট কি পাব আমি? ১ঘন্টা সময় দিলে আপনি কিন্তু ইংরেজিতে কথা বলবেন!! বিশ্বাস হচ্ছে না তো? বিশ্বাস না হলে একবার পড়ে দেখুন বেশি গ্রামার না জেনেও ইংরেজি বলা কত সহজ 🙂 ।
 
ইংরেজি শব্দটা আজও স্কুল-কলেজের Student সহ গ্রাজুয়েট মানুষদের ভয়ের কারণ। Student এর ভয়ের কারণ হলো ইংরেজি পরীক্ষা, আর গ্রাজুয়েটদের ভয়ের কারণ হল ইংরেজিতে কথা বলা। পরিসংখ্যান বলে এখনো দেশের ফেল করা Student এর প্রায় ৭০% Student-ই ফেল করে ইংরেজি বিষয়ে। আর প্রায় ৬০% গ্রাজুয়েটই ঠিক মতো কথা বলতে পারে না ইংরেজিতে। ব্যপারটা আসলে বিস্ময়কর তাই না?
আসলে আমরা লজ্জা, জড়তা নিয়ে থাকি সব-সময়। আর চর্চা না করে ইংরেজি মুখস্ত করে বেড়াই। আমরা বাঙালি আর বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা। প্রধান ভাষা । আর ইংরেজি হলো দ্বিতীয় প্রধান ভাষা। এটি হলো আর্ন্তজাতিক ভাষা। ইংরেজি ভাষা আমাদের জন্য কত গুরুত্বপূর্ণ সেটা আমরা সবাই ভালোই জানি। অনেক বড় বড় রচনা, ভাবসম্প্রসারণ আমাদের শেখা হয়েছে। তাই আমি ইংরেজির গুরুত্বের আলোচনার দিকে আর গেলাম না।
spoken
 
ইংরেজি অনেক সহজ একটা বিষয় যদিও আমরা পাহাড় সমান বিশাল মনে করি। আরো বেশি সোজা হলো ইংরেজিতে কথা বলা। আর আমরা সব চেয়ে সোজা ব্যাপারটাকেই সব চেয়ে কঠিন বানিয়ে রেখেছি। ইংরেজিতে কথা বলতে হলে যে আপনাকে অনেক গ্রামার জানতে হবে সেটা কিন্তু একদম ঠিক নয়। যদি আপনি গ্রামারের কিছু ধারণা আর কিছু প্রয়োজনীয় শব্দ আয়ত্তে আনতে পারেন এবং কিছু টেকনিক ব্যবহার করেন তবে আপনি সহজে ইংরেজিতে কথা বলতে পারবেন। ইংরেজিতে কথা বলা আহামরি কিছু না। শুধু আপনাকে আপনার লজ্জা শরম আর জড়তা থেকে বেরিয়ে এসে একটু প্রাকটিস করলেই হবে। লজ্জার জন্য যদি আপনি কিছু শিখতে না পারেন তবে এর চেয়ে বড় লজ্জার আর কী আছে বলুন??
 
আমরা আজ ইংরেজিতে কথা বলব!!! আসলে প্রাকটিক্যাল কাজগুলো লেখায় নিয়ে আসা কঠিন বটে। তবে আমি আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানে আপনাদের কিছুটা উপকারে আসার চেষ্টা করব। আমি নিজেও একজন ছাত্র। শিখছি আরো শিখব। আমারও ভুল হতে পারে আর ভুল হলে আমাকেও শিখতে সাহায্য করবেন। কারণ “A mistake is a mistake, if we don’t learn from it, But a mistake is not a mistake if we learn from it. ”
 
চলুন আমরা আগে লিখনির মাধ্যমে প্রাকটিস করার আগে কিছুটা নিজেকে উজ্জীবিত করি কিছু বিষয় জেনে।
 
স্পোকেন ইংলিশে গ্রামারের অবস্থান 
যে কোনো ভাষার ক্ষেত্রে গ্রামার বা ব্যাকরণ হচ্ছে ওই ভাষার পর্যায় ক্রমিক দিক দিয়ে শেষ অবস্থান ( Final stage)। ভাষার পর্যায়ক্রমিক দিক হচ্ছে শোনা ( Hearing ), বোঝা ( Understanding), কথা বলা ( Speaking ), পড়া ( Reading ) এবং সর্বশেষ লেখা ( Writing )। জন্মের পর একটি শিশু প্রথমে কোন কিছু শুনে বোঝার চেষ্টা করে। তারপর কথা বলতে শিখে। পরবর্তী ধাপে শিশুটি পড়তে শিখে তারপর সর্বশেষ লিখতে শিখে। অর্থ্যাৎ লেখা হচ্ছে পরিণত ( Matured) অবস্থার রূপ। কিন্তু আমাদের দেশের ইংরেজি শিক্ষা ব্যবস্থার মূল কাঠামোটি লক্ষ্য করুন। একটি ছোট শিশুকে প্রাথমিক অবস্থা থেকেই Grammar বা ব্যাকরণেরর অনুশীলন বা চর্চা করানো হয়। কিন্তু সর্বশেষ পরিস্থিতি কি দাড়াঁয়? আমারা আজকে যারা উচ্চশিক্ষিত, ছোটবেলা থেকে ব্যাকরণের অনুশীলন শুরু করে অনার্স মাস্টার্স পর্যন্ত পড়ালেখা শেষ করেও ইংরেজিতে ভালোভাবে কথাপকথন করতে পারি না। মূলত ব্যবহারিক জীবনে আমরা যে সব বিষয়ের উপর কথাবার্তা বলি, সেখানে পুরোপুরি ব্যাকরণ নির্ভর করে বাক্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে অনেকটা শিথিলতা রয়েছে। কিন্তু লেখার ক্ষেত্রে ব্যাকরণের যাবতীয় নিয়ম কানুন অনুসরণ করতে হয়। যেমন : আমরা যখন কাউকে জিজ্ঞাসা করি- Are you going to Dhaka? (আপনি কি ঢাকা যাচ্ছেন? ) কিন্তু বলার ক্ষেত্রে উপরোক্ত বাক্যটিকে প্রশ্নবোধক সুরে বলা হয়, You are going to Dhaka? এই বাক্যটি কথোপকথনের আঙ্গিকে সঠিক কিন্তু লিখার ক্ষেত্রে নয়। এখানেই কথোপকথনেরর সাথে লেখার ( Written) পার্থক্য।
 
স্পোকেন ইংলিশ- রহস্য
(The mystery of Spoken English)
প্রবাদে আছে, ‘বিন্দু বিন্দু জল দিয়ে সাগর মহাসাগর গড়ে ওঠে’। পৃথিবীর প্রত্যেকটি বৃহৎ বা মহৎ জিনিসের শুরু কিন্তু ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জিনিস দিয়ে। ইতিহাস তা-ই বলে। একজন মানুষ কোনো কিছু মায়ের গর্ভ থেকে শিখে আসে না। এই পৃথিবীর ছায়াতলে বিভিন্ন পরিবেশ পরিস্থিতিতে এক এক মানুষ এক একভাবে জীবন গড়ে তোলে। কিন্তু আমাদের দেশে এর অনেকটা ব্যতিক্রম পরিলক্ষিত হয়। যেমন, ইংরেজিতে কথা বলার কথাই ধরুন। একজন শিক্ষার্থী যখন প্রথম প্রথম ইংরেজি বলতে শুরু করে, তখন তার পাশের লোকজন, প্রতিবেশী, বন্ধুবান্ধব এমনকি নিজের ভাই-বোন বিভিন্ন ধরনের সমালোচনাসহ বাক্যে ব্যকরণের ভুল ধরার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে। ক্ষণে ক্ষণে কথায় কথায় এটা ভুল, সেটা ভুল বলে ঐ শিক্ষার্থীর সকল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিঃশেষ করে দেয়। আর এ কাজ অনেক উচ্চশিক্ষিত ব্যক্তিও করে থাকেন। অথচ উচিত ছিল ঐ শিক্ষার্থীকে সবাই মিলে ইংরেজিতে কথা বলার জন্য আরো বেশি উৎসাহিত করা। কারণ Spoken English বা কথোপকথনে সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে ‘জড়তা’ (Nervousness)। আর এই জড়তা কাটানোর একমাত্র উপায় হচ্ছে বেশি বেশি কথা বলা। শিশু জন্মের পরপরই হাঁটতে পারে না বা কথা বলতে পারে না কিন্তু কিছুদিন পর ঠিকই সে সবকিছু করতে পারে। একটি শিশু যখন প্রথমে এক পা দু পা করে হাটতে শুরু করে বার বার নিচে পড়ে যায়, তখন কিন্তু আমরা সবাই হাত তালি দিয়ে বিভিন্নভাবে উচ্চস্বরে তার প্রশংসা করি। অর্থাৎ সব কিছু প্রাথমিক অবস্থায় খুব দুর্বল থাকে। ইংরেজিতে জড়তা দূর করতে হলে আপনাকে লজ্জা দূরে সরিয়ে, সকল আলোচনা-সমালোচনা পেছনে ফেলে বন্ধুবান্ধব, প্রতিবেশী, আত্মীয়স্বজন সকলের সাথে সকল স্থানে বেশি করে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে। স্বামী বিবেকানন্দের নাম আমরা প্রায় সবাই জানি। তিনি হিন্দুধর্মের একজন বড় সাধু ছিলেন। তিনি একদিন আমেরিকান শিকাগো শহরে নিজের ধর্ম প্রচারের জন্য একটি সমাবেশে বক্তৃতা দিচ্ছিলেন, কিন্তু ইংরেজিতে দক্ষ ছিলেন না বলে বার বার তার কথা আটকে যাচ্ছে অর্থাৎ ঠিকমত এবং দ্রুত বলতে পারছিলেন না। তিনি অত্যন্ত লজ্জিত বা অপমানিত বোধ করলেন। স্থির করলেন কিছুদিন জঙ্গলে কাটাবেন। তারপর জঙ্গলে কিছুদিন থাকার পর ইংরেজিতে এতো দ্রুত এবং সুন্দর কথা বলতে পারতেন যা ইতিহাসে একটি নজির। জঙ্গলে তিনি অবাধে পশুপাখি, গাছপালাকে লক্ষ্য করে নিজে নিজে ইংরেজি বলা চর্চা করেছিলেন। ফলে তার সকল জড়তা বা লাজুকতা কেটে গেল। এবং তিনি পৃথিবীতে একজন নামকরা বক্তা হিসেবে স্বীকৃতি পেলেন।
 
আমরাতো সবাই গ্রামারের কিছু সাধারণ নিয়মতো জানি তাই নাহ?
যেমন :- Person, Sentence, Tense, Article, Preposition, Etc. ………
তবু আমরা হালকা আলোচনা করে নিব যাতে আমাদের ইংরেজি কথা বলা প্রেকটিস করতে তেমন সমস্যা না হয়।
 
Person
দুনিয়াতে আমি তুমি ছাড়া পৃথিবীতে যা কিছু আছে তা সব থার্ড পারসন।
আমি – I /We
তুমি – You/You
বাকি সব – Any Name ( Karim, Rahima, Father Etc.)
 
*থার্ড পারশনের পর Verb আসলে Verb এর শেষে s/es যুক্ত হয়।
 
Sentence
 
একটি Simple Sentence এর Structure হলো-
Subject + Verb + Object.
 
I Eat Rice.
I= Subject
Eat= Verb
Rice= Object ( *এক বা একাধিক শব্দও Object হয়। )
 
আমরা যদি একটা Simple sentence কে Interrogative Sentence (প্রশ্নবোধক) এ রূপান্তর করতে চাই তাহলে Just Simple Sentence এর Verb টাকে Subject এর আগে নিয়ে আসলে হবে।
 
=> You are a good boy. ( Simple Sentence)
 
=> Are you a good boy? ( প্রশ্নবোধক হয়ে গেল।)
 
Tense
Tense is the soul of English Grammar. Tense কে ইংরেজি গ্রামারের আত্মা বলা হয়। একটু প্রাকটিস করলেই সহজে Tense আয়ত্তে আনা যাই। ছোটকাল থেকেই আমরা Tense পরে আসছি তাই Tense নিয়ে বিষদ আলোচনা করলাম না আর। Tense প্রধানত ৩ ভাগে বিভক্ত।
1. Present Tense.
2. Past Tense.
3. Future Tense.
 
প্রত্যেক Tense আবার ৪ ভাগে বিভক্ত।
1. Indefinite
2. Continuous
3. Perfect
4. Perfect Continuous
 
ইংরেজিতে কথাবার্তা বলতে গেলে Tense-এর ১২টি ভাগ জানার দরকার নেই। তিন Indefinite Tense অর্থ্যাৎ,
-> Present indefinite
-> past Indefinite
-> Future Indefinite এবং
-> Present Perfect Tense
 
এই চারটি ভাগ শতকরা ৮০ থেকে ৯০ ভাগ কথোপকথন সম্পন্ন করে।
 
(১) Past Indefinite Tense : বাংলা বাক্যের শেষে ‘ল’ (তেছিল বাদে) বা ইয়াছে, ইয়াছ, খাইতে, যাইতে ইত্যাদি থাকলে Past Indefinite Tense। যেমন :
তুমি কখন এলে? When did you come?
সে কি খেয়েছে? What did he eat?
 
ওপরের Tense-এ ‘ইয়াছ বা ইয়াছি’ দেখে অনেকে হয়ত ভাবছেন, এটা কি করে সম্ভব? আমরা জানি ‘ ইয়াছ বা ইয়াছি ‘ থাকে Present perfect tense নির্দেশ করতে। নিচের দুটো উদাহরণ লক্ষ করুন :
i. তুমি কখন এসেছ?
ii. তুমি কখন এলে?
 
Sentence দুটিতে বাংলা অর্থের তাত্ত্বিক পার্থক্য থাকলেও ব্যবহারিক বা বাস্তব অবস্থার তেমর কোন পার্থক্য নেই। অর্থ্যাৎ যে লোকটি সম্বন্ধে প্রশ্ন করা হচ্ছে সে কিন্তু এসে গেছে। তাই এরূপ Sentence ব্যবহারিক দৃষ্টিকোণ থেকে Past Indefinite Tense এবং এটি শুধু Spoken English -এর সুবিধার জন্য করা হলো।
 
(২) Future Indefinite Tense : বাংলা বাক্যের শেষে ‘ব’ থাকলেই এই Tense সহজে চেনা যায়। যেমন:
তুমি কখন আসবে? When will you come?
সে আগামীকাল কখন ফোন করবে? When he will phone tomorrow?
 
(৩) Present Perfect Tense : কথোপকথনে এই Tense টি নিচের দুটি Form-এ ব্যবহৃত হয় :
i. কত সময় ধরে কোন কাজ চলছে : How long have/has…. verb pp
 
ii. তুমি/সে কি কখনো কোনো কারেছো/করেছে বুঝালে : Have you ever… Verb pp
 
[ বিঃ দ্রঃ সমস্ত Present Perfect Continuous tense -কে Present Perfect tense -এ প্রকাশ করা যায়।]
 
(৪) Present Indefinite tense: বাংলা বাক্যের সাধারণ form বা গঠন যেমন- করা, যাওয়া, আসা,খাওয়া ইত্যাদি বোঝালে এই Tense নির্দেশিত হয়।
যেমন : তুমি এখানে কিভাবে আসছ? How do you come here?
তোমার বন্ধু কখন তোমাকে ফোন করে? When does your friend phone you?
 
প্রশ্ন করার মূল সূত্রটি হলো :
 
(Wh/How + Auxl.Verb+ Subject |
 
Auxl.Verb + Subject +…..)
 
[ বিঃ দ্রঃ প্রয়োগের সুবিধার্থে Do/Does, Did, Will এগুলোকে Auxl Verb হিসাবে আখ্যায়িত করা হলো।]
 
 
Article
আমরা জানি A,An,The কে Article বলে।
আমরা আগে সিম্পল ব্যাপরটাই মাথার রাখবো আর ব্যবহার করব। সিম্পল নিয়মটা দিয়ে ৮০% কাজ সম্পাদন হয়। বাকি ২০% ব্যতিক্রম নিয়মগুলোকে আগে শিখতে গিয়ে আমরা ৮০% টাই টিক মতো আয়ত্তে আনতে পারি না। ৮০% পারলে আস্তে আস্তে আপনি দেখবেন আপনি বাকি ২০% ও সহজে আয়ত্তে নিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছেন।
 
A : Consonant এর আগে a বসে।
Ex : Give me a glass. ( আমাকে একটি গ্লাস দিন। )
 
An : Vowel ( A,E,I,O,U) এর আগে An বসে।
Ex : He is an educated person. ( সে একজন শিক্ষিত ব্যক্তি। )
 
The : কোন কিছুকে নিদিষ্ট করে বুঝালে। অথ্যাৎ কোন বাক্যে টা/টি থাকলে (পরিমাণ নয়) The বসবে।
Ex : Give me the glass. ( আমাকে গ্লাসটা দিন। )
 
Preposition
পৃথিবীতে যত Preposition আছে (in, into, on, onto, after, about, since, at, over, with, without, by, of, for, above, TO*, Etc.)
শুধুমাএ ‘To’ ছাড়া, Preposition এর পর Verb আসলে Verb এর শেষে ‘ing’ যুক্ত হবে। কিন্তু To এর পর Verb আসলে Verb এর বেস ফর্ম বসবে।
Ex : I am going (to) play football.
I am going (for) playing football.
 
 
আমাদের গ্রামার পার্ট শেষ। যদিও এটি ৪৫-৬০ মিনিটের একটা ক্লাসে সহজে বুঝিয়ে দেয়া যায় এখানে একটু বড় মনে হতে পারে।
 
চলুন এখন আমরা ইংরেজিতে কথা বলব!!!!
নিচের Sentence গুলো Practice করুন…..
=> Give me a [pen]. ( আমাকে ১টি কলম দিন।)
=> Give me the [pen]. ( আমাকে কলমটি দেন। )
 
এবার আপনি [.] এর জায়গায় বিভিন্ন Word (যেমন: book, cloth, chocolate, glass, ball, ticket, chips, Etc.) বসিয়ে Practice করুন।
 
কত সহজ তাই না? এবার আপনি লক্ষ করুন কতগুলো Sentence আপনি সহজে ইংরেজিতে বলতে পারছেন।
 
এবার চলুন Sentence টাকে একটু বড় করে বলি। দেখি ওই একটা Sentence দিয়ে আরো কথা বলতে পারি যা আমাদের প্রতিদিন কাজে লাগে।
 
Give me a glass of [Water]. ( আমাকে ১ গ্লাস পানি দেন। )
 
Sentence টা ঠিক। কিন্তু কথায় আছে ব্যবহারে বংশের পরিচয়। তাই চলুন আমরা আমাদের ব্যবহারে আরো মাধুর্যতা নিয়ে আসি। মানে Sentence-টাকে আরো সুন্দর করে বলি।
Please give me a glass of [Water]. ( দয়া করে আমাকে এক গ্লাস পানি দেন। )
 
যদি আরো সুন্দর করি বলি তবে…
 
May you give me a glass of [Water] please? ( আপনি কি দয়া করে আমাকে একগ্লাস পানি দিতে পারেন? )
 
আহা!! কত সুন্দর চাওয়ার ভঙ্গি তাই না? কথায় আছে মানুষ কথা দিয়ে সাম্রাজ্য জয় করতে পারে। এত সুন্দর করে কারো থেকে কিছু চাইলে সে কখনো আপনাকে না দিয়ে পারবে না। এতে সেও খুশি হবে আর আপনিও আত্মতৃপ্তি পাবেন।
 
চলুন এবার কাজের কথায় আসা যাক….
এখন আমাদের কাজ হলো শুধু [.] এর জায়গায় বিভিন্ন Word ( যেমন: Milk, juice, tea, Coffee, Hot water, cool water, Color-tea, Soft Drink Etc.) প্রয়োজন মতো বসিয়ে practice করা।
 
চলুন এবার আরেকটি Sentence দিয়ে দৈনিক আরো কথোপকথন চালানোর চেষ্টা করি-
I am going to [Cox’s-Bazar]. ( আমি কক্সবাজার যাচ্ছি। )
I am coming from [ Cox’s-Bazar ] ( আমি কক্সবাজার থেকে আসতেছি। )
 
এবার আপনি [.] এর জায়গায় প্রয়োজনীয় Word ( যেমন : Room, wash-room, Kitchen, Ramu, Chittagong, Dhaka, Sylhet, Market, class, School, College, office, Shop, Gym, Field Etc. ) বসিয়ে practice করুন।
 
মনে রাখবেন Practice ছাড়া আপনি Sentence গুলোর ব্যবহার আয়ত্বে আনতে পারবেন না। আর ইংরেজিতেও কথা বলতে পারবেন না।
 
উপরের বাক্যগুলো চর্চা করা হলে দেখবেন আপনি ইংরেজিতে কথা বলতে পারছেন। দৈনন্দিন টুকিটাকি ৮০% কথাই ইংরেজিতে বলতে পারছেন।
 
চলুন নিচে কিছু Formula শিখে নিই যা দিয়ে আমরা সহজে অনেক কথা বলতে পারব।
 
Positive | Negative
 
I [Do]. | I don’t [Do].
 
Do i [Do]? | Don’t i [Do]?
 
Wh/How do i [Do]? | Wh/How Don’t i [Do]?
 
 
(Wh= Wh Question. যেমন: what, which, why, Etc. )
 
এখানে [.] এর জায়গায় বিভিন্ন ( Do Verb) বসিয়ে Practice করতে হবে।
 
 
সবশেষ একটা কথাই বলব ” To succeed in life you need two things ignorance and confidence.”
 
আমি মনে করি পৃথিবীতে আমরা কেউ পরিপূর্ণ জ্ঞানী/ শিক্ষিত নয়। আমি নিজেও একজন সকল বিষয়ের ছাত্র। শিখছি, শিখব। শেখার কোনো শেষ নেই। নেই কোনো বয়স। আমি আমার ক্ষুদ্র জ্ঞানে আপনাদের উপকারে আসার চেষ্টা করেছি। আমি কোনো দিক দিয়ে এক্সপার্ট কেউ নয়। তবে আমি লিখার চেয়ে প্রাকটিকালভাবে বোঝাতে সক্ষম বেশি বলে মনে করি। তবু আমি চেষ্টা করেছি বিষয়গুলোকে যত সহজে সম্ভব আপনাদের সামনে উপস্থাপন করতে। 
 
আসুন আমরা অন্যের সমালোচনা বাদ দিয়ে নিজের সমালোচনা করি। তাহলে আমরা জানতে পারব, শিখতে পারব, পারব এগিয়ে যেতে। ধন্যবাদ।

[লেখাটি সামহোয়্যার ইন ব্লগ থেকে নেয়া- সম্পাদক]

Career Intelligence on Youtube